Revolutionary democratic transformation towards socialism

প্রার্থীদের আসন বণ্টন নিয়ে প্রাথমিক আলোচনা নির্বাচন কমিশনকে দৃশ্যমান-বিশ্বাসযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান বাম জোটের

বাম গণতান্ত্রিক জোট-এর সভায় আসন্ন নির্বাচনকে অবাধ-নিরপেক্ষ-অর্থবহ-গ্রহণযোগ্য করতে এখনও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে দৃশ্যমান-বিশ্বাসযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করতে নির্বাচন কমিশন-এর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। সভায় বলা হয়, নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর আওয়ামী লীগের মনোনয়নকে ঘিরে ব্যাপক শোডাউন, রাস্তা বন্ধসহ অন্যান্য ঘটনায় আচরণ বিধি লংঘনের বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ না নেওয়ায় নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। পরবর্তীতে বিএনপি অফিসের সামনের সহিংস ঘটনা চলমান নির্বাচনী পরিবেশের শঙ্কাকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে। গণভবনকে ঘিরে সরকারি সুবিধা নিয়ে দলীয় প্রার্থীর সাক্ষাৎকার, প্রচার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর প্রচার, নির্বাচনকালীন সরকারের ভূমিকা ও আচরণ বিধি লংঘনের ঘটনায় নির্বাচন কমিশনের ভূমিকাও প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। প্রচার প্রোপাগান্ডা, মনোনয়ন বাণিজ্যসহ নির্বাচনকে ঘিরে ইতোমধ্যে টাকার খেলার যে উৎসব দেখা যাচ্ছে তা প্রতিকারেও নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নেই। সভায় নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, সরকারি দলসহ সকল দল ও ব্যক্তিবর্গের জন্য সমসুযোগ প্রদানের দাবি জানানো হয়। সভায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনের দল নিরপেক্ষ ভূমিকাও নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়। আজ সকাল ১১টায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) কার্যালয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন বাসদের বজলুর রশীদ ফিরোজ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের মোশারেফ হোসেন নান্নু, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির মোশরেফা মিশু, বাসদ (মার্কসবাদী)’র ফখরুদ্দিন কবীর আতিক, গণসংহতি আন্দোলনের ফিরোজ আহমেদ, সিপিবি’র কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, রুহিন হোসেন প্রিন্স প্রমুখ। সভায় আসন্ন নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত করতে সকল মহলকে দায়িত্বশীল আচরণের আহ্বান জানানো হয়। সভায় আসন্ন নির্বাচনে বাম গণতান্ত্রিক জোট এর প্রার্থীদের আসন বণ্টন ও নির্বাচনী ইশতেহার নিয়ে প্রাথমিক আলোচনা করা হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন

Login to comment..