Revolutionary democratic transformation towards socialism

‘স্বৈরাচারের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ভিত্তি উচ্ছেদ করেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে’


স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের শহীদ ডা. শামসুল আলম খান মিলন এর প্রতি বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র পক্ষ থেকে আজ ২৭ নভেম্বর ২০২২ সকাল ৮টায় তাঁর সমাধিতে ও স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্য দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

এ সময় সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, কেন্দ্রীয় নেতা ডা. ফজলুর রহমান, ডা. শাকিল আক্তার, মানবেন্দ্র দেব, ডা. রাকিবুল ইসলাম, সিরাজুম মুনির, ডা. জি আজম, রতন দাস, নুরুল ইসলাম গাজীসহ অন্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সিপিবির সাধারণ সম্পাদক, বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক, ৯০’র স্বৈরাচারবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স শহীদ ডা. মিলনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, স্বৈরাচারের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ভিত্তি উচ্ছেদ করেই গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

তিনি বলেন, শহীদদের রক্তস্নাত আন্দোলনে বিজয়ের পর বিএনপি-আওয়ামী লীগ ক্ষমতাসীন হলেও শহীদ মিলনসহ স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের ও অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীদের বিচার করেনি। বরং ঐ পতিত স্বৈরাচার আর তার দোসরদের নিয়ে নীতিহীন রাজনীতি করে এরা নতুন নতুন কায়দায় স্বৈরাচারী ব্যবস্থা কায়েম করেছে। এদের ভিত্তিকে পাকাপোক্ত করেছে। এরা ৯০’র গণঅভ্যুত্থানের ম্যান্ডেট তিন জোটের রূপরেখা ও আচরণবিধি অনুসরণ করেনি। এদের হাত থেকে দেশবাসীকে মুক্ত করতে নীতিনিষ্ঠ শক্তির ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন,‘তিন জোটের রূপরেখা ও আচরণবিধি আজও প্রাসঙ্গিক। আজ অনেককে রাজনৈতিক ঐক্য, সমঝোতার কথা বলতে শোনা যায়। আগে তিন জোটের রূপরেখা ও আচরণবিধি মানুন। তারপর ঐক্য সমঝোতার কথা বলুন।’

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন

Login to comment..