ফ্যাসিস্ট হিন্দুত্ববাদী নরেন্দ্র মোদি’র ঢাকা আগমনের প্রতিবাদে আগামী ১৫ মার্চ ঢাকায় এবং ১৬ মার্চ সারাদেশে কালো পতাকা বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হবে

Posted: 23 ফেব্রুয়ারী, 2020

বাম গণতান্ত্রিক জোট কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের এক সভা গতকাল ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ সকাল সাড়ে এগারটায় ২৩/২ তোপখানা রোডস্থ বাসদ কার্যালয়ে (নীচতলায়) অনুষ্ঠিত হয়। বাম জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ও বাসদ কেন্দ্রীয় নেতা কমরেড বজলুর রশীদ ফিরোজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সিপিবি’র সহকারী সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাজ্জাদ জহির চন্দন, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক, বাসদ নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোশারফ হোসেন নান্নু, অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, বাসদ (মার্কসবাদী)-র নেতা আলমগীর হোসেন দুলাল, গণসংহতি আন্দোলনের জুলহাস নাইন বাবু, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির শহীদুল ইসলাম সবুজ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের হামিদুল হক প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। সভায় ভারতের হিন্দুত্ববাদী ফ্যাসিস্ট সরকারের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি’র ঢাকা আগমনের প্রতিবাদে আগামী ১৫ মার্চ ঢাকায় এবং ১৬ মার্চ সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এই বিক্ষোভ বাম গণতান্ত্রিক জোট, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলসহ ৪টি বাম দলের জোট, বাম ঐক্য ফ্রন্ট এবং গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য যুগপৎ কর্মসূচি হিসেবে পালন করবে। সভার প্রস্তাবে বলা হয়, ভারত তিস্তাসহ ৫৪টি নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা থেকে বঞ্চিত করছে, বার বার ওয়াদা করেও পানি বণ্টন চুক্তি সম্পাদন করছে না। বন্ধু রাষ্ট্র দাবি করে বাংলাদেশ সীমান্তে কাঁটা তারের বেড়া দিয়ে ঘিরে রেখেছে। সীমান্তে মারণাস্ত্র ব্যবহার করবে না এমন চুক্তির পরও প্রতিনিয়ত ভারতীয় বিএসএফ সীমান্তে বাংলাদেশী নাগরিক হত্যা করে চলেছে। ফেলানী হত্যার বিচার দীর্ঘ ৯ বছর ধরে ঝুলে রয়েছে। ভারতের সাথে বাংলাদেশের বিশাল বাণিজ্য ঘাটতি দূর না করে প্রতিনিয়ত তা বাড়িয়ে চলেছে। উপরন্তু সম্প্রতি নাগরিকত্ব আইন করে নাগরিক পঞ্জির মাধ্যমে নিজ দেশে হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক বিভাজন সৃষ্টি করে দাঙ্গা পরিস্থিতি সৃষ্টি করছে এবং বাংগালী মুসলিম ও হিন্দুদেরকে বাংলাদেশে পুশ ব্যাক করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে এই মোদি সরকার। মায়ানমারের রোহিঙ্গা সমস্যায়ও কথিত বন্ধু ভারত সরকার বাংলাদেশের পাশে না দাঁড়িয়ে মায়ানমারের পক্ষাবলম্বন করছে। এহেন হিন্দুত্ববাদী ফ্যাসিস্ট গুজরাটে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার বুচার অফ গুজরাট বলে স্বীকৃত খুনী নরেন্দ্র মোদিকে কোন মতেই ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে পাওয়া দেশের অসাম্প্রদায়িক ধর্মনিরপেক্ষ গণতন্ত্রমনা জনগণ এদেশে দেখতে চায় না। তাই শহীদের রক্তে স্নাত বাংলাদেশে নরেন্দ্র মোদিকে স্বাগত জানাতে পারি না। ১৬ কোটি মানুষের এই চেতনার প্রতিফলন হিসেবেই ‘নরেন্দ্র মোদি ফিরে যাও’ এই শ্লোগান নিয়ে আগামী ১৫ মার্চ ঢাকায় এবং ১৬ মার্চ সারাদেশে বাম গণতান্ত্রিক জোট কালো পতাকা বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবে। ১৫ মার্চ বিকেল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জমায়েত শেষে কালো পতাকা হাতে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হবে। দেশের সকল বাম প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দেশপ্রেমিক ধর্মনিরপেক্ষ রাজনৈতিক দল, সংগঠন, ব্যক্তি গোষ্ঠীকে আগামী ১৫ মার্চ এবং ১৬ মার্চের কালো পতাকা বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে সফল করার জন্য বাম জোটের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।