গণদাবির হরতাল সর্বাত্মক সফল করায় দেশবাসীকে সিপিবি’র অভিনন্দন হামলা-নির্যাতন-গ্রেফতার মোকাবেলা করেই শাসকের বিরুদ্ধে জনতার বিজয় ছিনিয়ে আনা হবে

Posted: 07 জুলাই, 2019

জনস্বার্থ উপেক্ষা করে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে, সিলিন্ডার গ্যাসের দাম কমানোর দাবিতে এবং জনদুর্ভোগের বাজেটের প্রতিবাদে বাম গণতান্ত্রিক জোট আহূত হরতাল সর্বাত্মক সফল করায় দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)। আজ ৭ জুলাই ২০১৯ এক বিবৃতিতে সিপিবি’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম গণদাবির হরতালে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণের মাধ্যমে জনতার ওপর সরকারের চাপিয়ে দেয়া জুলুমের সমুচিত জবাব দেয়ায় দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, জনগণের আন্দোলন দমনে শাসকগোষ্ঠী যতই হামলা-নির্যাতন-গ্রেফতার পরিচালনা করুক না কেন সিপিবি দেশের অপরাপর বামপন্থী ও গণতান্ত্রিক শক্তিকে সাথে নিয়ে জনতার বিজয় ছিনিয়ে আনবেই। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ সারাদেশে হরতাল পালনে সরকারি বাধা-হামলা, আটক ও গ্রেফতার ইত্যাদি জুলুম-নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, গতকাল গভীর রাতে সিপিবি খুলনা জেলা কার্যালয়ের গেট ভেঙ্গে পুলিশ নারকীয় তাণ্ডব চালায়। এসময় সিপিবি, বাম জোট এবং বিভিন্ন গণসংগঠনের নেতৃবৃন্দকে আটক, নির্যাতন, নাজেহাল করা হয়। গতকাল ময়মনসিংহে হরতালের সমর্থনে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন আয়োজিত মিছিলে পুলিশ হামলা চালিয়েছে। এসময় ছাত্র ইউনিয়ন ময়মনসিংহ জেলা সংসদের সভাপতিসহ তিন ছাত্রনেতাকে গ্রেফতার করা হয়। আজ হরতাল চলাকালে ঢাকার পল্টন এলাকায় সিপিবি ঢাকা কমিটির নেতা ও বিপ্লবী সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের দপ্তর সম্পাদক হযরত আলীকে পুলিশ আটক করে। একই সময় গার্মেন্ট টিইউসির কর্মী ও রানা প্লাজা ট্রাজেডিতে পঙ্গু মাহমুদুল হাসান হৃদয়কেও পুলিশ আটক করে। পরবর্তীতে হরতাল সমর্থক কর্মী ও জনতার চাপে পুলিশ তাদের মুক্তি দিতে বাধ্য হয়। জয়পুরহাটে হরতাল সমর্থনে মিছিল থেকে সিপিবি আক্কেলপুর উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান সরদারকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়াও আজ হরতাল চলাকালে দেশের বিভিন্ন স্থানে হরতাল সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিংকালে পুলিশি বাধা, হামলা ও নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি ও গণবিরোধী বাজেটের ফলে সরকারের প্রতি দেশের সাধারণ মানুষের মনে সৃষ্টি হওয়া ক্ষোভ ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ক্ষমতাসীন সরকারকে ভীত ও সন্তস্ত্র করেছে। তাই বাম জোটের হরতাল কর্মসূচি বানচাল করতে তারা নানান অপকৌশল ও নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে। কিন্তু সরকারের কোনো অপকৌশল ও জুলুম নির্যাতন বাম জোটের হরতাল কর্মসূচির সাফল্যকে রুখতে পারেনি। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, সরকারি ছত্রছায়ায় থাকা পরিবহন খাতের মাফিয়ারা হরতালকে ব্যর্থ দেখাতে যে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছিল হরতালের প্রতি জনতার সক্রিয় সমর্থনে সে ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। তারা বলেন, আজ হরতাল চলাকালে এই মাফিয়া চক্রের গুণ্ডাদের আক্রমণে সিপিবি কর্মী ও পরিবহন শ্রমিক আব্দুল মোতালেব আহত হয়েছে। কিন্তু পুলিশের মদদে এসকল সন্ত্রাসী হামলা হরতাল পালনে সাধারণ মানুষকে বিরত করতে পারেনি। নেতৃবৃন্দ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, মানুষের ক্ষোভ ক্রোধে রূপান্তরিত হওয়ার পূর্বেই গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার করুন। নচেৎ লুটপাট ও দুর্নীতির যে আর্থিক দায় সরকার সাধারণ মানুষের ওপরে চাপাতে চাচ্ছে তার প্রতিক্রিয়ায় যে গণবিদ্রোহ সৃষ্টি হবে তা সামাল দিতে সরকার সক্ষম হবে না। নেতৃবৃন্দ গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার না করা হলে আগামী ১৪ জুলাই ২০১৯, বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডাকে জ্বালানি মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি সফল করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।