কমরেড রতন সেন হত্যাকাণ্ডের ২৫ বছর ‘হত্যাকারীরা চিহ্নিত হলেও বিচার না হওয়ায় দেশে দূর্বৃত্তায়নের রাজনীতি বন্ধ হয়নি’

Posted: 31 জুলাই, 2017

ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের অগ্রসৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বিশিষ্ট মার্কসবাদী তাত্ত্বিক, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সাবেক সদস্য, খুলনা জেলার সাবেক সভাপতি ও কৃষক সমিতির খুলনা জেলার সাবেক সভাপতি কমরেড রতন সেন এর ২৫তম হত্যাবার্ষিকীতে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সিপিবি আয়োজিত মানববন্ধন সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, সরকারী গোয়েন্দা সংস্থাই হত্যাকারীদের চিহ্নিত করেছিল। অথচ আজ পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডের বিচার হয়নি। এই বিচার না হওয়ায় দেশে হত্যা-খুন আর দূর্বৃত্তায়নের রাজনীতি বন্ধ হয়নি। আজ ৩১ জুলাই সকাল ১১টায় সিপিবি’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, ঢাকা নগর নেতা সেকেন্দার হায়াৎ, সাংবাদিক আশীষ কুমার দে, সিপিবি’র পুষ্পেন রায় ও ছাত্রনেতা দীপক শীল। মোঃ শাহ আলম বলেন, কমরেড রতন সেন হত্যার পর তৎকালীন বিরোধী দলের নেতা, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, তিনি ক্ষমতায় গেলে হত্যাকাণ্ডের বিচার করবেন। অথচ আজ পর্যন্ত বিচার হয়নি। তিনি এই হত্যাকাণ্ডের পুনঃতদন্ত ও বিচার দাবি করেন। রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, কমরেড রতন সেন দেশের শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের স্বার্থে ‘মুক্ত মানবের মুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে’ ছিলেন আপোষহীন। তাই সাম্প্রদায়িক ও কায়েমী স্বার্থবাদীদের ভাড়াটেদের দিয়ে এই হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়েছে, এখনও হচ্ছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রকৃত হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির পাশাপাশি শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমেই কমরেড রতন সেন এর হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া হবে। আজ সকালে সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রয়াত কমরেড রতন সেন এর প্রকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। এছাড়া খুলনায় এই হত্যাকাণ্ডের ২৫ বছরকে সামনে রেখে শ্রদ্ধা নিবেদন, শোক র‌্যালি, সমাবেশ এর মাধ্যমে প্রধান কর্মসূচি পালন করা হয়।