হাওরে মাছ ধরতে নেমে পড়েছেন সাধারণ মানুষ জলমহালের ইজারা স্থগিতের দাবি সিপিবি-বাসদ-এর

Posted: 09 জুলাই, 2017

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ-এর আহ্বানে সাড়া দিয়ে, জীবন বাঁচাতে হাওরে মাছ ধরতে নেমে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। এদিকে হাওরের ইজারা স্থগিতের দাবিতে সিপিবি-বাসদ আজ ৯ জুলাই হাওর অধ্যুষিত ৭ জেলার উপজেলাগুলোতে ঘেরাও-বিক্ষোভ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি পেশ করেছে। এই কর্মসূচিতে হাজার হাজার মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। বিভিন্ন উপজেলায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে সাজ্জাদ জহির চন্দন, আব্দুল্লাহ কাফি রতন, জলি তালুকদার এবং স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে চিত্তরঞ্জন তালুকদার, মোস্তফা কামাল, সাজেদুল ইসলাম সেলিম, নলিনী সরকার, অ্যাড. এনামুল হক, এনাম আহমেদ, এনামুল হক ইদ্রিস, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সিপিবি-বাসদ-এর নেতৃবৃন্দ বলেন, হাওরের লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবন এক চরম অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। লুটেরা-ধনিক গোষ্ঠী ইজারার নামে বছরের পর বছর হাওরের জলমহাল দখল করে রেখেছে। এই ব্যবস্থা আর চলতে দেওয়া যায় না। হাওরকে লুটেরা-ধনিক গোষ্ঠীর কবল থেকে মুক্ত করতে হবে। ভাসান পানিতে সাধারণ মানুষের মাছ ধরার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, আন্দোলনের মাধ্যমেই হাওরের মানুষ তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবে। মানুষের বেঁচে থাকার লড়াইয়ে সিপিবি-বাসদ সব সময় সামনের কাতারে থাকবে। নেতৃবৃন্দ ভবিষ্যতে কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে বলে ঘোষণা দেন। হাওরের ইজারা স্থগিত করার দাবি সিপিবি-বাসদ-এর সিপিবি’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক কমরেড মো. শাহ আলম ও বাসদ-এর সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান এক বিবৃতিতে হাওরের জলমহালের ইজারা স্থগিত রাখার দাবি জানিয়েছেন। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, হাওরের ওপর নির্ভরশীল মানুষকে বেঁচে থাকার জন্য হাওরে মাছ ধরতেই হবে। এর বিকল্প কোনো পথ নেই। মাছ ধরার ক্ষেত্রে কোনো বাধা হাওরের সর্বস্বান্ত মানুষ মানবে না। মানুষের জীবন বাঁচাতে হাওরের জলমহালের ইজারা স্থগিত রাখতে হবে। নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে আরও বলেন, হাওরের মাছ ধরে যেমন বাঁচতে হবে, তেমনি হাওরকেও বাঁচাতে হবে। হাওরের স্বার্থে পোনা মাছ ধরা এবং মশারির জাল ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে।