Register or Login
রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধ করে দেশের সম্পদ লুট করা চলবে না হামলা-মামলা দিয়ে বামপন্থীদের দমিয়ে রাখা যাবে না খুলনায় নেতৃবৃন্দের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে
Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

## ‘বন্দিমুক্তি দিবসে’ বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ বাম গণতান্ত্রিক জোটের আহ্বানে গত ১৯ অক্টোবর বন্ধ রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলসমূহ খুলে দেয়া ও পাটকলসমূহ আধুনিকায়নের দাবিতে দেশব্যাপী সড়ক ও রাজপথ অবরোধ কর্মসূচি চলাকালে খুলনায় গ্রেফতারকৃত নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবিতে ঘোষিত ‘বন্দিমুক্তি দিবস’-এর কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে নেতৃবৃন্দ আজ ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামেন উপরোক্ত বক্তব্য প্রদান করেন। বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন এর সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাইফুল হক, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড রাজেকুজ্জামান রতন, ইউসিএল’র সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোশাররফ হোসেন নান্নু, বাসদ (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড ফখরুদ্দিন কবীর আতিক, গণসংহতি আন্দোলনের সম্পাদকম-লীর সদস্য বাচ্চু ভূঁইয়া, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির শহীদুল্লাহ সবুজ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সভাপতি কমরেড হামিদুল হক। সভা পরিচালনা করেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য কমরেড আকবর খান। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন দেশে লুটপাটের রাজত্ব চলছে। রাষ্ট্রীয় সম্পত্তি ব্যক্তিমালিকানায় দিয়ে দেয়ার জন্য সরকার বিরোধিতাকারীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের গ্রেফতার করে কারারুদ্ধ করছে। গত ১৯ অক্টোবর পুলিশ কর্মসূচি থেকে পাটকল রক্ষায় সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের সদস্য সচিব ও সিপিবি নেতা এস এ রশিদ, যুগ্ম আহ্বায়ক ও বাসদ নেতা জনার্দন দত্ত

নান্টু, সিপিবি নেতা মিজানুর রহমান বাবু, শ্রমিকনেতা অলিয়ার রহমান, শ্রমিকনেতা শামশেদ আলম শমশের, ছাত্র ফেডারেশনের নেতা আল-আমিন শেখ, ছাত্র ইউনিয়ন নেতা রবিউল ইসলাম রবিসহ ১৩ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে। পরে ১৪ জনের নামসহ অজ্ঞাত ২০০/২৫০ ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধারায় অজামিনযোগ্য মিথ্যা মামলা দায়ের করে তাদেরকে কারারুদ্ধ করা হয়। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, নানা তালবাহানার পর আজ আদালত তাদের জামিন দিলেও তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা হয়নি। নেতৃবৃন্দ তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানান। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, এরকম হামলা-মামলা দিয়ে বাম জোটের নেতাকর্মীদের দমিয়ে রাখা যাবে না। দুর্বার আন্দোলন গড়ে শ্রমিকবিরোধী আওয়ামী সরকারকে পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল করতে বাধ্য করা হবে। সেইসাথে নেতৃবৃন্দ বন্ধ পাটকলসমূহ খুলে দেয়ার দাবি জানান। তারা পাটকলসমূহে ৭০ বছরের পুরনো মেশিন ফেলে দিয়ে নতুন মেশিন দিয়ে পাটকলসমূহ আধুনিকায়ন করার দাবি জানান। তারা বলেন, সরকার পাটশ্রমিকদের চাকুরিচ্যুতির জন্য ৫ হাজার কোটি টাকা খরচ করতে রাজি আছে। কিন্তু মাত্র ১২০০ কোটি টাকা খরচ করে ২৫টি পাটকলকে অত্যাধুনিক কারখানায় পরিণত করা সম্ভব। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, এ সরকার গণবিরোধী সরকার, নারীবিরোধী সরকার, শ্রমিকবিরোধী সরকার। এ সরকার ভোট ডাকাতির সরকার। ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন থেকে দেশ বাঁচাতে মধ্যরাতের ভোট ডাকাতির এ সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে। বাম জোটের নেতাকর্মীরা এ লড়াইকে বিজয়ী করবে। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরের বিভিন্ন পথ প্রদক্ষিণ করে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..

© Copyright Communist Party of Bangladesh 2020. Beta