Register or Login
বিচারপতির রায়ের ওপর আইন মন্ত্রণালয়ের কর্তৃত্ববাদী হস্তক্ষেপ আইনের শাসনের পরিপন্থী
Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক এমপি একেএম আউয়াল ও তার স্ত্রী লায়লা পারভীনকে দুদকের মামলায় জামিন আবেদন খারিজ করে দুপুরে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন জেলা ও দায়রা জজ মো. আবদুল মান্নান। এ আদেশের পর তাৎক্ষণিকভাবে ওই বিচারপতিকে বদলি করে আইন মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করা হয় এবং চার ঘণ্টার মধ্যে আসামীদের জামিন দেয়া হয়। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম এই ঘটনায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে এক বিবৃতিতে বলেন, এটা বিচার বিভাগের ওপর নির্বাহী বিভাগের অবৈধ হস্তক্ষেপ এবং আইনের শাসনের পরিপন্থী। নেতৃবৃন্দ বলেন, এটা বিচার বিভাগের স্বাভাবিক কাজকর্মকে রুদ্ধ করবে, বিচারকদের স্বাধীন ও ন্যায়সঙ্গত রায়কে বাধাগ্রস্ত করবে এবং রায় প্রদানে বিচারপতিদের সবসময় দ্বিধাগ্রস্ত ও ভীতির মধ্যে রাখবে। দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি প্রাধান্য পাবে। নেতৃবৃন্দ এই পদক্ষেপের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং জনগণকে এই কর্তৃত্ববাদী পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..

© Copyright Communist Party of Bangladesh 2020. Beta