Register or Login
মহান রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের ১০১তম বার্ষিকীতে কমরেড সেলিম অক্টোবর বিপ্লবের প্রেরণায় গণতন্ত্র ও মানব-মুক্তির সংগ্রামকে বেগবান করতে হবে
Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

মহান রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের ১০১তম বার্ষিকীতে পুরানা পল্টনের মৈত্রী মিলনায়তনে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র আলোচনা সভায় সিপিবি’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, মহান রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের চেতনাকে ধারণ করে মানব মুক্তির সংগ্রামকে বেগবান করতে হবে। এই লড়াই-সংগ্রামের অংশ হিসেবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লড়াইকেও কমিউনিস্টদেরই অগ্রসর করে নিয়ে যেতে হবে। মহান রুশ সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের ১০১তম বার্ষিকীতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) দেশব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দিনব্যাপী আলোকচিত্র প্রদর্শনী, গ্রন্থ প্রদর্শনী, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিকেল ৫টায় শুরু হওয়া আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সিপিবি’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সিপিবি’র সাবেক সভাপতি, উপদেষ্টা সদস্য কমরেড মনজুরুল আহসান খান, সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক কমরেড মো. শাহ আলম, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সভাপতি ড. সফিউদ্দিন আহমদ, রণেশ দাশগুপ্ত চলচ্চিত্র সংসদের সভাপতি চলচ্চিত্র নির্মাতা মসিহউদ্দিন শাকের, বাংলাদেশ প্রগতি লেখক সংঘের সভাপতি কবি গোলাম কিবরিয়া পিনু। আলোচনা সভা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিবি’র সভাপতিম-লীর সদস্য কমরেড অনিরুদ্ধ দাশ অঞ্জন ও সভা সঞ্চালনা করেন সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড মো. কিবরিয়া। কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব সারা দুনিয়ার মানবজাতির মুক্তির সংগ্রামে প্রেরণার উৎস। মানব মুক্তির ইতিহাসে অক্টোবর বিপ্লব

ও তার নেতা মহামতি লেনিনের নাম চিরঅক্ষয় হয়ে থাকবে। একথা দৃঢ়তার সাথে বলা যায়, সমাজতন্ত্রই মানব মুক্তির সত্যিকারের পথ। মহান অক্টোবর বিপ্লব বিশ্ববাসীর কাছে নতুন তাৎপর্য নিয়ে সারা দুনিয়ার শোষিত-মেহনতি মানুষকে অনুপ্রাণিত করে চলেছে। কমরেড মনজুরুল আহসান খান বলেন, মহান সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব নতুন তাৎপর্য নিয়ে আজ আবির্ভূত। সারাবিশ্বে সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আগ্রহ ও আস্থা বেড়েছে। কোটি কোটি মানুষ এ আদর্শকে সামনে রেখে শোষণমুক্তি তথা মানবমুক্তির সংগ্রাম বেগবান করে তুলছে। কমরেড মো. শাহ আলম বলেন, সোভিয়েত ইউনিয়নের বিপর্যয়-পরবর্তী সময়ের অভিজ্ঞতা প্রমাণ করেছে যে, পুঁজিবাদের আগ্রাসী থাবা বাংলাদেশসহ সারা দুনিয়ার দারিদ্র্য, হতাশা, নৈরাজ্য ও যুদ্ধোন্মাদনাকে আরো বৃদ্ধি করেছে। পুঁজিবাদ এখন মহাসংকটে নিপতিত। সাম্রাজ্যবাদী নানা ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের কারণে সোভিয়েত ইউনিয়নের সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থার পতন ঘটলেও, মানবমুক্তির সংগ্রাম থেমে থাকেনি। সভায় অন্যান্য বক্তারা বলেন, বিভিন্ন দেশ বাস্তব পরিস্থিতি অনুযায়ী বিপ্লবের পথে অগ্রসর হয়। মানবমুক্তির মহান আকাক্সক্ষাকে ধারণ করে সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার জন্যই গণতন্ত্রের সংগ্রামকে বিজয়ী করা বামপন্থি ও কমিউনিস্টদের কর্তব্য। শ্রেণি আন্দোলন এবং ভাত-কাপড়ের সংগ্রাম বেগবান করার পাশাপাশি জনগণের রাজনৈতিক স্বাধীনতা ও মতপ্রকাশের অধিকারের ব্যাপারে সোচ্চার হতে মহান অক্টোবর বিপ্লব আমাদের শিক্ষা দেয়। আলোচনা সভার পর রণেশ দাশগুপ্ত চলচ্চিত্র সংসদের উদ্যোগে অক্টোবর বিপ্লব সম্পর্কিত প্রামাণ্যচিত্র ‘মুক্তির নিশান’ প্রদর্শিত হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..

© Copyright Communist Party of Bangladesh 2019. Beta