Register or Login
সাম্প্রতিক বিষয়াবলী

সিপিবি’র আলোচনায় কমরেড সেলিম আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পরস্পরের বিরুদ্ধে ‘গলাকাটা দ্বন্দ্বে’ লিপ্ত

পোস্টের তারিখঃ ২৮ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, রাষ্ট্র ক্ষমতার জন্য আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পরস্পরের বিরুদ্ধে ‘গলাকাটা দ্বন্দ্বে’ লিপ্ত। গণতান্ত্রিক পথে দ্বন্দ্ব নিরসনের পরিবর্তে তারা দেশকে অব্যাহত সহিংস সংঘাতের ধারায় নিয়ে গেছে। এ ধরনের পরিস্থিতি দেশ ও জনগণের জন্য ভয়াবহ পরিণতি বয়ে আনতে পারে। আজ ২৮ জানুয়ারি সকালে পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সিপিবি একতা শাখার আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন। শাখা সভাপতি মোসলেম উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সিপিবি সভাপতি বলেন, চলমান সহিংসতার রাজনীতি থেকে দেশকে মুক্ত করতে হলে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দ্বিদলীয় মেরুকরণের বাইরে বাম-গণতান্ত্রিক ও উদারনৈতিক বিকল্প শক্তি গড়ে তুলতে হবে। রাজনীতির মূলস্রোতে দেশপ্রেমিক ও গণমুখী নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা..বিস্তারিত

‘দেশ বাঁচাও’ আওয়াজে ৩০ জানুয়ারি সিপিবি-বাসদের সারাদেশে কর্মসূচি ঘোষণা

পোস্টের তারিখঃ ২৮ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ এবং বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)-এর সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান প্রচার মাধ্যমে প্রকাশার্থে নিম্নলিখিত যৌথ বিবৃতিটি প্রদান করেছেন। “ক্ষমতার দ্বন্দ্বের নষ্ট-ভ্রষ্ট, দুষ্টচক্রের চলতি রাজনীতির বলি হচ্ছে দেশ ও জনগণ। শিশু, নারী নির্বিশেষে সাধারণ নাগরিকেরা পেট্রোল বোমায় পুড়ে মরছে, যানবাহন জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে, রেললাইন উপড়ে ফেলা হচ্ছে, চলছে অন্তর্ঘাত ও নাশকতা। জনজীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে। বিএনপি-জামায়াত তাদের ‘আন্দোলনকে’ নিয়ন্ত্রণহীন সহিংসতার পথে পরিচালনা করছে। জামায়াত-শিবির সহিংস হামলাবাজির বর্ষাফলক রূপে নেমে পড়েছে। এদিকে, সমস্যার উৎস রাজনৈতিক হলেও, রাজনৈতিক পন্থায় তা নিরসনের বদলে সরকার মৌলিক গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করে..বিস্তারিত

দিনাজপুরে আদিবাসী পল্লীতে হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সিপিবি

পোস্টের তারিখঃ ২৭ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ এক বিবৃতিতে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে আদিবাসী পল্লীতে হামলা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাটের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, সরকার মুখে মুক্তিযুদ্ধের কথা বললেও জাতিগত ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা বিধান করতে বারে বারে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে। এ ধরনের হামলার পিছনে গভীর রাজনৈতিক দুরভিসন্ধি রয়েছে। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি সংখ্যালঘুদের উচ্ছেদে সব সময় সক্রিয়। শাসকশ্রেণির দলগুলো তাদেরকে রাজনৈতিকভাবে আশ্রয় দিচ্ছে। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশে এ ধরনের হামলা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। দেশবাসীকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাগ্রত হয়ে এসব হামলা প্রতিরোধ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার লড়াইকে অগ্রসর করতে..বিস্তারিত

ইআরসি’তে সিপিবি-বাসদ-এর অবস্থান কর্মসূচিতে কমরেড সেলিম গুলি-বোমার পাশাপাশি মূল্য বৃদ্ধির বোমা দিয়ে মানুষ মারার আয়োজন চলছে

পোস্টের তারিখঃ ২৫ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, শাসক শ্রেণির দুই দল ও জোটের মধ্যে ক্ষমতার কাড়াকাড়িতে দেশের মানুষ আজ আক্রান্ত, চরম নিরাপত্তাহীন এবং হামলা ও হুমকির মধ্যে। বিএনপি-জামাতের হরতাল-অবরোধে সারাদেশে আগুন জ্বলছে। পেট্রলবোমা, গুলি, ককটেলে মানুষ মারা যাচ্ছে। সরকার রাজনৈতিক সংকটের সমাধান রাজনৈতিকভাবে না করে পুলিশ দিয়ে সমাধান করতে চাইছে। বর্তমান অরাজক-অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মধ্যে সরকার মূল্য বৃদ্ধির নতুন বোমা জনগণের ওপর নিক্ষেপ করছে। একদিকে গুলি-বোমায় মানুষের জীবন যাচ্ছে। অপরদিকে মূল্য বৃদ্ধির বোমা দিয়ে মানুষ মারার আয়োজন চলছে। গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির পাঁয়তারার প্রতিবাদে আজ ২৫ জানুয়ারি, সকালে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (ইআরসি) সামনে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও..বিস্তারিত

সিপিবি’র ‘ঢাকা সমাবেশে’-সেলিম সবার জন্য বাসযোগ্য ঢাকা গড়ো, সংঘাত সংঘর্ষের রাজনীতি বন্ধ করো

পোস্টের তারিখঃ ২৩ জানুয়ারী, ২০১৫

সংঘাত সংঘর্ষ অস্থিতিশীলতা ঢাকা বাসীর জীবনকে দূর্বিসহ, অসহনীয় নিরাপত্তাহীন পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। ‘মরার উপর খাড়ার ঘাঁ’ মতো এমনিতেই ঢাকা বাসীর উপর গ্যাসের দাম, বিদ্যুৎ বাড়ীভাড়া বেড়েই চলছে, যানজট ঢাকাকে অচলাবস্থার সৃষ্টি করেছে। যখন এসব সমস্যা সমাধান করা জরুরী তখন না করে উপরন্ত রাজনৈতিক সংঘাত সংঘর্ষ অস্থিতিশীলতা জনজীবনের সংকটকেই আড়াল করছে। এ সহিংস সংঘাত পরিস্থিতি সুযোগ করে দিচ্ছে জামাত শিবিরসহ উগ্র সাম্প্রদায়িক শক্তি ও ষড়যন্ত্রের অন্ধকারের শক্তিকে। দেশপ্রেমিক মানুষ এ অবস্থা মেনে নিতে পারে না। আজ ২৩ জানুয়ারি শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সিপিবি ঢাকা কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত ঢাকা সমাবেশ বক্তারা উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। সমাবেশে ঢাকা কমিটির সভাপতি আশরাফ হোসেন..বিস্তারিত

পল্টন হত্যাকান্ড দিবসের ১৪ তম বার্ষিকীতে কমরেড সেলিম হত্যা-নির্যাতন করে আদর্শের লড়াই থেকে কমিউনিস্টদের কখনই বিচ্যুত করা যাবে না

পোস্টের তারিখঃ ২০ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, কমিউনিস্ট পার্টির অগ্রযাত্রা থামাতেই পল্টনে মহাসমাবেশে বোমা হামলা চালিয়ে নির্মমভাবে ৫ জন কমরেডকে হত্যা করা হয়েছে। ’৫০ সালে রাজশাহী জেলে গুলি করে ৭ জন কমরেডকে হত্যা করা হয়েছে। বারে বারে কমিউনিস্ট পার্টির ওপর হামলা হয়েছে। পল্টনে বোমা কমরেড হিমাংশু মন্ডলের জীবন কেড়ে নিলেও, তাঁর হাত থেকে লাল পতাকা ছিনিয়ে নিতে পারেনি। হত্যা-নির্যাতন করে আদর্শের লড়াই থেকে কমিউনিস্টদের কখনই বিচ্যুত করা যাবে না। আজ ২০ জানুয়ারি, সকাল ১০টায় পুরানা পল্টনস্থ মুক্তি ভবনের সামনে পল্টনের শহীদদের স্মরণে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সিপিবি’র সভাপতি কমরেড সেলিম এসব..বিস্তারিত

আগামীকাল ২০ জানুয়ারি পল্টনে সিপিবি’র মহাসমাবেশে বোমা হত্যাকান্ডের ১৪তম বার্ষিকী

পোস্টের তারিখঃ ১৯ জানুয়ারী, ২০১৫

আগামীকাল ২০ জানুয়ারি, পল্টন বোমা হামলার ১৪তম বার্ষিকী। ২০০১ সালের এই দিনে রাজধানীর পল্টন ময়দানে সিপিবি’র লাখো মানুষের সমাবেশে বোমা হামলা চালায় প্রতিক্রিয়াশীল ঘাতক চক্র। এই হামলায় খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা উপজেলার সিপিবি নেতা কমরেড হিমাংশু মন্ডল, খুলনা জেলার রূপসা উপজেলার সিপিবি নেতা ও দাদা ম্যাচ ফ্যাক্টরীর শ্রমিক নেতা কমরেড আব্দুল মজিদ, ঢাকার ডেমরা থানার লতিফ বাওয়ানি জুটমিলের শ্রমিক নেতা কমরেড আবুল হাসেম ও মাদারীপুরের কমরেড মুক্তার হোসেন ঘটনাস্থলেই এবং খুলনা বিএল কলেজের ছাত্র ইউনিয়ন নেতা কমরেড বিপ্রদাস আহত হয়ে ঢাকা বক্ষব্যাধি হাসপাতালে ঐ বছরেই ২ ফেব্রুয়ারি শহীদের মৃত্যুবরণ করেন। বোমা হামলায় শতাধিক কমরেড আহত হন। এদের মধ্যে অমর মন্ডল, লক্ষণ..বিস্তারিত

সিপিবি-বাসদ ও ঐক্য প্রক্রিয়ার যুগপৎ কর্মসূচিতে নেতৃবৃন্দ রাজনৈতিক সংকট রাজনৈতিকভাবে সমাধান করতে হবে

পোস্টের তারিখঃ ১৯ জানুয়ারী, ২০১৫

দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে দেশ অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। রাজধানী থেকে সারা দেশ কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। পেট্রল বোমার আগুনে পুড়ে, সংঘর্ষে, রেলের নাশকতায়, পুলিশের গুলিতে, ক্রসফায়ারে নারী-শিশুসহ গত দুই সপ্তাহে ২৬ জন মানুষ মারা গিয়েছে। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যুর সাথে লড়াই করে যাচ্ছে আরও অনেকে। সরকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সম্পূর্ণ ব্যর্থ। চলমান এই রাজনৈতিক সংকট রাজনৈতিক উপায়ে মোকাবেলা না করে প্রশাসনিক ব্যবস্থায় এ ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলা করা সম্ভব নয়। আজ ১৯ জানুয়ারি, ২০১৫ সোমবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সিপিবি-বাসদ ঐক্য এবং নাগরিক ঐক্য প্রক্রিয়ার যুগপৎ মানববন্ধন কর্মসূচিতে নেতৃবৃন্দ এই কথা বলেন। জনগণের গণতান্ত্রিক মৌলিক অধিকার নিশ্চিন্ত করা ও..বিস্তারিত

সভা-সমাবেশসহ গণতান্ত্রিক মৌলিক অধিকার নিশ্চিত কর জনগণের জান-মালের নিরাপত্তা দাও, সহিংসতা বন্ধ কর

পোস্টের তারিখঃ ১৭ জানুয়ারী, ২০১৫

আজ ১৭ জানুয়ারি ২০১৫ সকাল ১১টায় সিপিবি কার্যালয়ে সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিতে সিপিবি-বাসদ এর এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান, সিপিবি সাধারণ সম্পাদক কমরেড সৈয়দ আবু জাফর আহম্মদ, বাসদের বজলুর রশীদ ফিরোজ, সিপিবি প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড শাহ আলম, সামছুজ্জামান সেলিম, সাজ্জাদ জহির চন্দন, বাসদের জাহেদুল হক মিলু। সভায় গৃহীত এক প্রস্তাবে বলা হয়, অনেক রক্ত ও ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের মাতৃভূমি আজ এক গভীর সংকটে নিপতিত। বড় দুটি রাজনৈতিক দল ও তাদের নেতৃত্বাধীন জোটের ক্ষমতার লড়াইয়ের কাছে দেশের মানুষ আজ জিম্মি হয়ে পড়েছে। গত কয়েকদিনে পুলিশের গুলি ও ক্রসফায়ারে,..বিস্তারিত

গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সিপিবি-বাসদের ১৯ জানুয়ারি বিক্ষোভ সমাবেশ ও ২৫ জানুয়ারি অবস্থান কর্মসূচি

পোস্টের তারিখঃ ১৪ জানুয়ারী, ২০১৫

রাজনীতির ডামাডোলের আড়ালে সরকার বিদ্যুত গ্যাসের দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট কাটার আয়োজন করছে। সরকারের এই গণ বিরোধী সিদ্ধান্ত জনগণ প্রতিরোধ করবে। আজ ১৪ জানুয়ারি ২০১৫ সকাল ১১টায় সিপিবি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের যৌথ সভায় এই অভিমত ব্যক্ত করা হয়। সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন বাসদের সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জমান, সিপিবির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমদ, সাজ্জাদ জহির চন্দন, বজলুর রশীদ ফিরোজ, জাহেদুল হক মিলু। সভার এক প্রস্তাবে জোট মহাজোটের ক্ষমতা কেন্দ্রীক সংঘাত সংঘর্ষের রাজনীতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়, দুই জোটের হিংসাত্মক রাজনীতিতে জনগণের নাভিশ্বাস উঠেছে। তাদের..বিস্তারিত

বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু কমরেড সুনীল দাশগুপ্তের প্রয়াণে সিপিবি’র শোক

পোস্টের তারিখঃ ০৯ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ ভূমিকা রাখার কারণে বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে বিশেষ সম্মাননা প্রাপ্ত বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু জার্মান প্রবাসী ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিআই)-এর জার্মান প্রতিনিধি কমরেড সুনীল দাশগুপ্তের প্রয়াণে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) গভীর শোক প্রকাশ করেছে। সিপিবি’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ এক বিবৃতিতে বলেন, কমরেড সুনীল দাশগুপ্তের প্রয়াণে বাংলাদেশের বাম-গণতান্ত্রিক শক্তি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এক অকৃত্রিম বন্ধুকে হারালো। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁর বলিষ্ঠ ভূমিকা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। উল্লেখ্য, কমরেড সুনীল দাশগুপ্ত গতকাল ৮ জানুয়ারি বার্লিনে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স..বিস্তারিত

সিপিবি-বাসদ-এর মতবিনিময় সভায় আলোচকবৃন্দ জনগণ এখন লুটেরা রাজনীতি আর লুটেরা অর্থনীতির বৃত্তে বন্দী

পোস্টের তারিখঃ ০৬ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) আয়োজিত ‘লুটপাটের রাজনৈতিক অর্থনীতি’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় বক্তারা বলেছেন, জনগণের ভবিষ্যত ধ্বংস করতে ক্ষমতাসীনরা খুবই দক্ষ হয়ে উঠেছে। একের পর এক ব্যাংক লুট হচ্ছে। এখন চলছে মেগা প্রকল্পের ভয়ঙ্কর লুটপাট। শেয়ার কেলেঙ্কারির কোন প্রতিকার হয়নি। লক্ষ লক্ষ মানুষ সর্বস্ব হারিয়েছে, অন্যদিকে হাতে গোনা কয়েকজন হাজার হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। রাজনৈতিক ক্ষমতা এই লুটপাটের প্রধান হাতিয়ার। রাজনৈতিক লুটপাট এখন লুটপাটের রাজনীতিতে পরিণত। জনগণ এখন লুটেরা রাজনীতি আর লুটেরা অর্থনীতির বৃত্তে বন্দী। আজ ৬ জানুয়ারি মুক্তিভবনের প্রগতি সম্মেলন কক্ষে এই আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সিপিবি’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত গোলটেবিল আলোচনায়..বিস্তারিত

সিপিবি-বাসদ-এর সংবাদ সম্মেলন আতঙ্কিত পরিস্থিতির জন্য বড় দুই বুর্জোয়া দলের সাম্রাজ্যবাদনির্ভর লুটপাটের রাজনীতিই দায়ি

পোস্টের তারিখঃ ০৫ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, ঢাকা শহর তো বটেই জেলাগুলোতেও ভৌতিক-অরাজক-আতঙ্কিত পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে। সংঘাত-সহিংসতা-সংঘর্ষের আসল কারণ বুর্জোয়া দলগুলির সাম্রাজ্যবাদনির্ভর ক্ষমতাকেন্দ্রিক লুটপাটের রাজনীতি। আতঙ্কিত পরিস্থিতির জন্য বড় দুই বুর্জোয়া দলই দায়ি। আজ ৫ জানুয়ারি মুক্তি ভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে (২ কমরেড মণি সিংহ সড়ক, পুরানা পল্টন, ঢাকা) সকাল ১১টায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে কমরেড সেলিম এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে সূচনা বক্তব্য রাখেন বাসদ-এর সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান এবং লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র..বিস্তারিত

দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)-এর সংবাদ সম্মেলন

পোস্টের তারিখঃ ০৫ জানুয়ারী, ২০১৫

প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ আজকের এই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হওয়ার জন্য আপনাদেরকে আন্তরিক শুভেচ্ছা। দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ক্রমেই অস্থির, অনিশ্চিত ও সংঘাতপূর্ণ হয়ে উঠেছে। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি তথাকথিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর দেশে আপাত শান্ত পরিবেশ বিরাজ করলেও, আজ আবার রাজনৈতিক পরিস্থিতি অশান্ত ও অস্থির হয়ে পড়েছে। এই আশঙ্কা আমরা নির্বাচনের আগেই প্রকাশ করেছিলাম। আমাদের এই আশঙ্কা সত্যে পরিণত হচ্ছে। ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ছিল একপক্ষীয়, অগ্রহণযোগ্য, প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত একটি নির্বাচন। এই নির্বাচনের বর্ষপূর্তিতে পরিস্থিতি আরও সংঘাতপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সরকার ৫ জানুয়ারিকে বলছে ‘গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’। আবার বিএনপি ও তার জোট এই দিনকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ আখ্যা..বিস্তারিত

আগামীকাল ‘লুটপাটের রাজনৈতিক অর্থনীতি’ শীর্ষক সিপিবি-বাসদ-এর মতবিনিময় সভা

পোস্টের তারিখঃ ০৫ জানুয়ারী, ২০১৫

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)-এর উদ্যোগে আগামীকাল ৬ জানুয়ারি বিকেল ৩ টায় মুক্তিভবনস্থ প্রগতি সম্মেলন কক্ষে (২, কমরেড মণি সিংহ সড়ক, পুরানা পল্টন, ঢাকা।) ‘লুটপাটের রাজনৈতিক অর্থনীতি’ শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় অতিথি আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অর্থনীতিবিদ ইব্রাহিম খালেদ, অধ্যাপক এম এম আকাশ, অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ, ড. বিনায়ক সেন। সভায় সিপিবি-বাসদ-এর শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন। বার্তা প্রেরক চন্দন সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় দপ্তর বিভাগ, সিপিবি..বিস্তারিত

গঠনতন্ত্র (১১, ১২ ও ১৩ অক্টোবর ২০১২ ঢাকায় অনুষ্ঠিত দশম কংগ্রেসে সংশোধিত)

পোস্টের তারিখঃ ০১ জানুয়ারী, ২০১৫

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ১. বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি এ দেশের শ্রমিক শ্রেণী ও শ্রমজীবী জনগণের বিপ্লবী রাজনৈতিক দল। ২. সমাজতন্ত্র ও সাম্যবাদী সমাজ প্রতিষ্ঠা করা এই পার্টির লক্ষ্য। ৩. বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি মার্কসবাদ-লেনিনবাদের বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিভঙ্গি দ্বারা তার সকল কর্মকান্ড পরিচালনায় ও নীতিসমূহ রচনায় সচেষ্ট থাকবে। সে ক্ষেত্রে পার্টি মার্কস, এঙ্গেলস, লেনিনের চিন্তার বৈজ্ঞানিক মর্মবাণী ও বিষয়বস্তুকে অনুসরণ ও বিকশিত করে অগ্রসর হওয়ার ধারাকে পার্টির মতাদর্শগত ভিত্তি রূপে বিবেচনা করবে। মতাদর্শের ক্ষেত্রে পার্টি সঠিক মার্কসীয় চিন্তা অনুসরণে যে কোনো প্রকার মতান্ধতা, গোঁড়ামি, শাস্ত্রবদ্ধ চিন্তার প্রবণতা প্রভৃতি হতে মুক্ত থাকবে এবং তত্ত্ব ও প্রয়োগের আন্তঃসম্পর্ক বিষয়ে মার্কসীয় সূত্র অনুসারে তত্ত্ব ও প্রয়োগকে সকল সময় সৃজনশীলভাবে অগ্রসর ও বিকশিত করতে..বিস্তারিত

ঘোষণা ও কর্মসূচি (৭, ৮ ও ৯ মার্চ ১৯৯৯-এ অনুষ্ঠিত সপ্তম পার্টি কংগ্রেসে গৃহীত এবং ১১, ১২ ও ১৩ অক্টোবর ২০১২ ঢাকায় অনুষ্ঠিত দশম কংগ্রেস পর্যন্ত সংশোধিত)

পোস্টের তারিখঃ ০১ জানুয়ারী, ২০১৫

সমাজতন্ত্রের লক্ষ্যে বিপ্লবী গণতান্ত্রিক পরিবর্তন সাধন করুন বাংলাদেশের ইতিহাস শ্রমে, সৃজনে, বিদ্রোহে ও স্বপ্নে বর্ণিল এক ইতিহাস। সুপ্রাচীনকাল থেকে এদেশের জনগণ ও মেহনতি মানুষ শ্রমে ও মেধায়, কর্মে ও সাধনায় যে সভ্যতা নির্মাণ করেছিল, তার একটি নিজস্ব সমৃদ্ধি ছিল। শস্য-শ্যামলা বলে এ দেশের খ্যাতি ছিল। বাংলার কারুশিল্প পণ্যের খ্যাতি ও বাণিজ্য বিস্তৃত ছিল নিকটপ্রাচ্য এমনকি ইউরোপ পর্যন্ত। লোক সংস্কৃতির সমৃদ্ধ ঐতিহ্যের পাশাপাশি বাঙালি মনীষীরা সৃষ্টি করেছিলেন শিল্প-সাহিত্য-সঙ্গীতের ঐশ্বর্যময় ভান্ডার। অথচ এই সমৃদ্ধির নির্মাতা মেহনতি মানুষ ও জনগণ শতাব্দীর পর শতাব্দী শোষণ-বঞ্চনায় নিষ্পেষিত হয়েছে। এদেশের সকল সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড ও রাজনৈতিক-সামাজিক সংগ্রামের ধারায় গড়ে উঠেছে এক উজ্জ্বল মানবিক, গণতান্ত্রিক ঐতিহ্য ও মূল্যবোধ। প্রায়..বিস্তারিত

রাজনৈতিক প্রস্তাব (১১, ১২ ও ১৩ অক্টোবর ২০১২ ঢাকায় অনুষ্ঠিত দশম কংগ্রেসে গৃহীত)

পোস্টের তারিখঃ ০১ জানুয়ারী, ২০১৫

ভূমিকা ২০০৮ সালের আগস্টে অনুষ্ঠিত নবম পার্টি কংগ্রেসের সময় দেশের ক্ষমতায় ছিল মইনউদ্দিন-ফখরুদ্দিন-ইয়াজউদ্দিনের তত্ত্বাবধায়ক সরকার। ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি এই সরকার ক্ষমতা গ্রহণ করেছিল এবং একটানা ২ বছর অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে রেখেছিল। সেনা সমর্থিত ও অনির্বাচিত ‘ওয়ান-ইলেভেনের’ এই সরকার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে মানুষের মৌলিক অধিকারগুলো হরণ করেছিল। এই সরকারের শাসনকালের শেষের দিকে জরুরি অবস্থা কিছুটা শিথিল হওয়া মাত্রই আমাদের পার্টি কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়েছিল। তার পরে গত ৪ বছরে দেশে অনেক ঘটনা ঘটেছে। একই সাথে গত ৪ বছরে দক্ষিণ এশিয়াসহ সমগ্র বিশ্বে নানা ধরনের এবং অনেক সময় বিপরীতমুখী প্রবণতার ঘটনাও ঘটেছে। সে সব ঘটনার অভিঘাত আমাদের দেশের ঘটনাবলীর ওপরেও প্রভাব..বিস্তারিত

কমরেড মণি সিংহ মেলা শুরু কমরেড মণি সিংহ-এর ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকীতে সিপিবি’র শ্রদ্ধা নিবেদন

পোস্টের তারিখঃ ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৪

ভারতবর্ষের স্বাধীনতা আন্দোলন, কৃষকের স্বার্থে গড়ে ওঠা ঐতিহাসিক টংক আন্দোলন, সমাজতন্ত্র তথা সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে উপমহাদেশের কিংবদন্তীর নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম স্থপতি, প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সভাপতি কমরেড মণি সিংহের ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। আজ সকাল সাড়ে ৮টায় শ্যামপুর শ্মশানে কমরেড মণি সিংহের স্মৃতিফলকে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)সহ বিভিন্ন দল ও সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। শ্যামপুর শ্মশানে পুষ্পমাল্য অর্পণকালে সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদের নেতৃত্বে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। সিপিবি নেতৃবৃন্দ মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লাবলু, চন্দন সিদ্ধান্ত, জাহিদ হোসেন খান, আবু তাহের..বিস্তারিত

আগামীকাল সাম্রাজ্যবাদবিরোধী সংহতি দিবস সিপিবি-বাসদসহ প্রগতিশীল সংগঠনগুলোর নানা কর্মসূচি

পোস্টের তারিখঃ ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৪

আগামীকাল ১ জানুয়ারি সাম্রাজ্যবাদবিরোধী সংহতি দিবসে সিপিবি, বাসদ, ছাত্র ইউনিয়ন ও প্রগতিশীল ছাত্রজোটসহ সাম্রাজ্যবাদবিরোধী সকল প্রগতিশীল সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। প্রতিবারের মতো এবারো ১ জানুয়ারি সকাল ৮টায় মতিউল-কাদের চত্বরের সাম্রাজ্যবাদবিরোধী সংহতি স্মারকে (জাতীয় প্রেসক্লাব মোড়ে) বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)সহ বিভিন্ন বামপন্থী দলের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। উল্লেখ্য, মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে সংগ্রামরত ভিয়েতনামের জনগণের সাথে সংহতি প্রকাশের জন্য ১৯৭৩ সালের ১ জানুয়ারি মিছিল বের করে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন। মিছিলটি তৎকালীন মার্কিন তথ্য কেন্দ্রের সামনে আসলে বিনা উস্কানিতে পুলিশ আকস্মিকভাবে গুলি চালায়। স্বাধীন দেশের মাটি শহীদের রক্তে রঞ্জিত হয়। পুলিশের গুলিতে নিহত হন ছাত্রনেতা..বিস্তারিত

© Copyright Communist Party of Bangladesh 2015. Beta